স্বাস্থ্য টিপস, স্বাস্থ্য তথ্য

জীবনীশক্তি ও রোগ শক্তির সম্পর্ক – The Relation Between Vital Force and Disease

Relation Between Vital Force and Disease

জীবনীশক্তি কি? – What is Vital Force?

যে অদৃশ্য গতিশীল শক্তি অত্যন্ত সুচারুভাবে একটি সুনির্দিষ্ট ও সুনিয়ন্ত্রিত নিয়মানুসারে মানব দেহের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গের মাধ্যমে জীবনের বিভিন্ন ক্রিয়া সমূহের সংহতি ও সামঞ্জস্য বিধান করিয়া সযত্নে দেহের সাম্যবস্থা বজায় রাখে উহাকে বলা হয় জীবনী শক্তি।

জীবনীশক্তির কাজ – The Functionality of Vital Force

জীবনীশক্তি স্বাধীনভাবে মানব দেহে অবস্থান করিয়া দেহ ও মনকে সঞ্জিবিত রাখে। প্রাকৃতিক এই শক্তি ডাইনামিস নামে অভিহিত। মানব দেহের প্রতি অঙ্গে, প্রতিকোষে এই শক্তি সমভাবে পরিব্যাপ্ত থাকিয়া দেহের অঙ্গ প্রত্যংগ্যকে স্বীয় কর্ম সম্পাদনে নিয়োজিত করে। ফলে মানব দেহের বৃদ্ধি, পুষ্টি সাধন ও ক্ষয় পূরণ হয়। এই শক্তি মানব দেহকে অনুভব করিবার, কার্য্য সম্পাদন করিবার এবং কিছুটা আত্নরক্ষা করিবার স্বাভাবিক ক্ষমতা প্রদান করে। জীবনীশক্তি ব্যতীত জড় দেহের অনুভব করিবার, কার্য্য সম্পাদন করিবার কিংবা আত্নরক্ষা করিবার কোন ক্ষমতা থাকেনা। এই শক্তি একদিকে যেমন দেহ মধ্যস্থ্য ক্রিয়া সমূহের সংহতি ও সামঞ্জস্য বিধান করে, আবার অন্যদিকে বহিঃ প্রকৃতির সংগে আন্তঃপ্রকৃতিকে মানাইয়া চলিতে স্বতঃস্ফূর্ত প্রয়াস চালাইয়া দেহ মধ্যে সাম্যবস্থ্যা বজায় রাখে। এই শক্তির সাহায্যেই দেহী জীবনের অনুকূলে যাবতীয় কার্য্যাদি সম্পাদন করে।

অসুস্থ্যবস্ত্যায় জীবনীশক্তির কাজ – Role of Vital Force in Sickness

মানুষের অসুস্থ্যবস্থায় জীবনীশক্তির আচার-আচরণ জীবনের অনুকূলে না হইয়া, বরং প্রতিকূলে চলিয়া যায়, ঠিক যেন ক্রীতদাসের মত। কিন্তু জীবনীশক্তি রোগশক্তির অনুকূলে কাজ করে বলিয়া রোগশক্তির চরিত্রটিও জীবনীশক্তির দর্পনে প্রতিভাত হয়। অর্থাৎ রোগের লক্ষণও জীবনীশক্তির মাধ্যমে উদ্ভাসিত হয়। রোগশক্তি কতৃক পরাভুত হইবার পরে জীবনীশক্তির স্বতঃস্ফূর্ত ক্রিয়াচাঞ্চল্য থাকেনা, সে রোগশক্তির কবলে থাকে।

জীবনীশক্তির বিকৃত কার্য্যকলাপই রোগ। রোগের লক্ষণসমষ্ঠি জীবনীশক্তিতে প্রকাশিত লক্ষণের মাধ্যমেই পাইয়া থাকি।এই কাজে জীবনীশক্তি চিকিৎসককে সহায়তা প্রদান করে এবং আরোগ্য লাভের নিমিত্তে উদ্গ্রীব থাকে।

দেহ ও মনের সাথে জীবনীশক্তির সম্পর্ক – Relation Between Body and Mind

মানুষের প্রাণক্রিয়া সাধিত হয় বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যংগ্যের মাধ্যমে এক অতীন্দ্রীয় শক্তির ছন্দোময় প্রকাশের মধ্য দিয়ে। এই শক্তি প্রাণসত্তায় নিহিত থাকে। এই শক্তির প্রবাহ প্রাণসত্তা হইতে মনে, প্রতি কোষে, প্রতি কলায়, প্রতি অঙ্গে, ভিতর হইতে বাহিরের দিকে সঞ্চালিত হয় বলিয়া দেহযন্ত্র সঞ্জিবিত থাকে এবং ক্রিয়াশীল হয়। মানবদেহের পুষ্টি, বৃদ্ধি ও ক্ষয়পুরণ হয়। এই শক্তির নাম জীবনীশক্তি।

দেহমন লইয়া গঠিত চেতনাময় জীবন সত্তার স্বয়ংক্রিয় শক্তিই জীবনীশক্তি।ইহা অতিন্দ্রীয় বা অদৃশ্য শক্তি। মানুষ দেহ মন লইয়া গঠিত এক অখন্ড চেতনাময় জীবনীসত্তা। মনের অবস্থান দেহের মধ্যেই।মন মানবসত্তার উচ্চস্তরের অভিব্যক্ত রুপ। তবু দেহ ও মন আঙ্গাআংগিভাবে জড়িত। কোন মানসিক ক্রিয়ার প্রতিক্রিয়া অঙ্গ প্রত্যংগের অনুভূতি ও ক্রিয়ার মাধ্যমে উপ্লব্ধি হয়। তেমনি মানুষ রোগাক্রান্ত হইলে প্রথমে মনে ও পরে দেহের শাখা প্রশাখায় রোগের বিস্তার ঘটে।

রোগ দেহকে নয়, জীবনীশক্তিকেই আক্রমন করে – Disease Attack The Vital Force Not The Body

দেহ জড় বস্তু।এই জড়দেহকে সঞ্জীবিত রাখে জীবনীশক্তি।জীবনীশক্তি অতীন্দ্রিয় সূক্ষ শক্তি বিশেষ। রোগশক্তিও সূক্ষ্ম অতীন্দ্রিয় শক্তি। রোগশক্তি জীবনীশক্তিকে অতীন্দ্রিয় স্তরে আক্রমন করিয়া রোগের সংক্রমন ঘটায়। জীবনীশক্তির অবস্থান দেহস্থরে, জীবনের বৈশিষ্ট্যের মধ্য দিয়া আমরা জীবনকে উপলব্ধি করিয়া থাকি। রোগশক্তি জীবনীশক্তিকে আক্রমন করিলে জীবনীশক্তি দেহে বিশৃংখলা সৃষ্টির মাধ্যমে রোগের স্বরুপ প্রকাশ করে। লক্ষণ সমষ্টির মাধ্যমে আমরা জীবনীশক্তির রোগাক্রান্ত অবস্থা অনুভব করিয়া থাকি। অতএব দেখা যায় যে, রোগ কখনো স্থুল দেহকে আক্রমন করেনা, রোগ শক্তিও সূক্ষ্ম বলিয়া সূক্ষ্ম জীবনীশক্তিকেই আক্রমন করে।

রোগ আরোগ্যে জীবনীশক্তির ভুমিকা – The Role in Curing Disease

রোগশক্তির আক্রমনে জীবনীশক্তি আত্নরক্ষার স্বাভাবিক তাগিদে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। ফলে দেহমনে কতগুলি উপসর্গ দেখা দেয়। সাধারন ভাবে ঐ উপসর্গ গুলি রোগ নামে পরিচিত। আসলে এই গুলি রোগের লক্ষণ, রোগ হইল জীবনীশক্তির এক বিশেষ গুনগত অবস্থা যাহা রোগশক্তির প্রভাবে সৃষ্টি হয়। রোগের আলাদা কোন অস্তিত্ত্ব নাই। জীবনীশক্তিই সৃষ্টি করে দেহের আভ্যন্তরীণ যন্ত্রনাদায়ক বিশৃঙ্খলা। এই সকল বিশৃঙ্খলার একটা বৈশিষ্ট্যমন্ডিত রুপ লক্ষণ সমষ্টি। লক্ষণ সমষ্টির মাধ্যমে জীবনীশক্তি চিকিৎসকের নিকট ঔষধের জন্য প্রার্থনা জানায়।

লেখকঃ অধ্যাপক ডাঃ চন্দন কুমার নাথ,সাবেক বিভাগীয় প্রধান হোমিওপ্যাথিক ফার্মেসী আজিজুর রহমান হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, চট্টগ্রাম।

আলহাজ্ব ডাঃ মোহাম্মদ এয়াকুব বিভাগীয় প্রধান, অর্গানন অব মেডিসিন, আজিজুর রহমান হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, চট্টগ্রাম।

আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে নিয়মিত আপডেট পেতে থাকুন।

About Goodmorning Aid

Goodmorning aid is a Bangladeshi Health E-Commerce site with wide range of natural homeopathic, Unani and Ayurvedic products. We are safe and trusted.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *